জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন আইন, ২০১৩

( ২০১৩ সনের ২৯ নং আইন )

নদীর অবৈধ দখল, পানি ও পরিবেশ দূষণ, শিল্প কারখানা কর্তৃক সৃষ্ট নদী দূষণ, অবৈধ কাঠামো নির্মাণ ও নানাবিধ অনিয়ম রোধকল্পে এবং নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ পুনরুদ্ধার, নদীর যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ এবং নৌ-পরিবহনযোগ্য হিসাবে গড়িয়া তোলাসহ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে নদীর বহুমাত্রিক ব্যবহার নিশ্চিত করার প্রয়োজনে একটি কমিশন গঠনের উদ্দেশ্যে প্রণীত আইন
যেহেতু নদীর অবৈধ দখল, পরিবেশ দূষণ, শিল্প কারখানা কর্তৃক সৃষ্ট নদী দূষণ, অবৈধ কাঠামো নির্মাণ ও নানাবিধ অনিয়ম রোধকল্পে এবং নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ পুনরুদ্ধার, নদীর যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ এবং নৌ-পরিবহনযোগ্য হিসাবে গড়িয়া তোলাসহ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে নদীর বহুমাত্রিক ব্যবহার নিশ্চিত করার প্রয়োজনে একটি কমিশন গঠন করা সমীচীন ও প্রয়োজন;
 
 
সেহেতু এতদ্বারা নিম্নরূপ আইন প্রণয়ন করা হইলঃ-
 
 

সূচি

ধারাসমূহ

১। সংক্ষিপ্ত শিরোনাম ও প্রবর্তন

২। সংজ্ঞা

৩। জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন প্রতিষ্ঠা

৪। কমিশনের কার্যালয়

৫। কমিশন গঠন

৬। চেয়ারম্যান ও সদস্যগণের যোগ্যতা, ইত্যাদি

৭। প্রধান নির্বাহী

৮। চেয়ারম্যান ও সদস্যগণের অযোগ্যতা, অপসারণ ও পদত্যাগ

৯। সদস্যপদে শূন্যতার কারণে কার্য বা কার্যধারা অবৈধ না হওয়া

১০। সদস্যগণের বেতন, ভাতা, ইত্যাদি

১১। কমিশনের সভা

১২। কমিশনের কার্যাবলি

১৩। কমিশনের কার্যাবলির বার্ষিক প্রতিবেদন

১৪। কর্মকর্তা ও কর্মচারী নিয়োগ

১৫। তহবিল

১৬। হিসাব রক্ষণ ও নিরীক্ষা

১৭। জনসেবক

১৮। ক্ষমতা অর্পণ

১৯। বিধি প্রণয়নের ক্ষমতা

২০। প্রবিধান প্রণয়নের ক্ষমতা

২১। ইংরেজীতে অনূদিত পাঠ প্রকাশ