প্রিন্ট

24/06/2024
রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন আইন, ১৯৮৭

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন আইন, ১৯৮৭

( ১৯৮৭ সনের ৩৮ নং আইন )

এই অাইনটি স্থানীয় সরকার ( সিটি কর্পোরেশন ) আইন, ২০০৯ (২০০৯ সনের ৬০ নং আইন) দ্বারা রহিত করা হইয়াছে।

চতুর্থ পরিচ্ছেদ

নির্বাহী ক্ষমতা

নির্বাহী ক্ষমতা
২৯৷ (১) এই আইনের অধীনে যাবতীয় কার্যাবলী যথাযথভাবে সম্পাদনের জন্য প্রয়োজনীয় সব কিছু করিবার ক্ষমতা কর্পোরেশনের থাকিবে৷
 
 
 
 
(২) এই আইন এবং বিধিতে ভিন্নরূপ বিধান না থাকিলে, কর্পোরেশনের নির্বাহী ক্ষমতা মেয়রের উপর ন্যস্ত থাকিবে এবং এই আইন ও বিধি অনুযায়ী উহা মেয়র কর্তৃক প্রত্যক্ষভাবে অথবা 1[* * *] প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বা মেয়রের নিকট হইতে ক্ষমতা প্রাপ্ত অন্য কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারীর মাধ্যমে প্রযোজ্য হইবে৷
 
 
 
 
(৩) কর্পোরেশনের নির্বাহী বা অন্য কোন কার্য কর্পোরেশনের নামে গৃহীত হইয়াছে বলিয়া প্রকাশ করা হইবে এবং উহা বিধি দ্বারা নির্দ্ধারিত পদ্ধতিতে প্রমাণীকৃত হইতে হইবে৷
নগরীকে জোনে বিভক্তিকরণ
2[২৯ক৷ (১) কর্পোরেশনের সুষ্ঠু প্রশাসন ও যথাযথ কার্য পরিচালনার উদ্দেশ্যে সরকার নগরীকে প্রয়োজনীয় সংখ্যক জোনে বিভক্ত করিতে পারিবে৷
 
 
 
 
(২) প্রত্যেক জোনে একটি করিয়া জোনাল অফিস থাকিবে এবং ইহা কর্পোরেশন কর্তৃক প্রদত্ত কার্যাবলী মেয়রের তত্ত্বাবধান ও নিয়ন্ত্রণে বিধি অনুযায়ী সম্পাদন করিবে৷]
কার্য নিষ্পন্নকরণ
৩০৷ কর্পোরেশনের সকল কার্য বিধি দ্বারা নির্দ্ধারিত সীমার মধ্যে ও পদ্ধতিতে উহার বা উহার স্থায়ী কমিটিসমূহের সভায় অথবা উহার মেয়র, 3[* * *] প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বা অন্যান্য কর্মকর্তা বা কর্মচারী কর্তৃক নিষ্পন্ন করা হইবে৷
সভা
৩১৷ (১) কর্পোরেশন প্রতিমাসে অন্যুন একবার সভায় মিলিত হইবে৷
 
 
 
 
(২) মেয়র অথবা তাঁহার অনুপস্থিতিতে 4[ধারা ১৯ এর বিধান অনুযায়ী ক্ষমতাপ্রাপ্ত কমিশনার] প্রয়োজন মনে করিলে যে কোন সময় কর্পোরেশনের সভা আহ্বান করিতে পারিবেন, তবে কমিশনারদের মোট সদস্য-সংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশের লিখিত অনুরোধ প্রাপ্ত হইলে তিনি কর্পোরেশনের সভা আহ্বান করিতে বাধ্য থাকিবেন৷
 
 
 
 
(৩) কমিশনারগণের মোট সংখ্যার অন্যুন এক-তৃতীয়াংশ সর্বক্ষণ উপস্থিত না থাকিলে কর্পোরেশনের কোন সভায় কোন কার্য নিষ্পন্ন করা যাইবে না৷
 
 
 
 
(৪) এই আইনে ভিন্নরূপ বিধান না থাকিলে, কর্পোরেশনের সভায় সকল সিদ্ধান্ত উপস্থিত কমিশনারগণের অধিকাংশের ভোটে গৃহীত হইবে৷
 
 
 
 
(৫) প্রত্যেক কমিশনারের একটি করিয়া ভোট থাকিবে, এবং ভোটের সমতার ক্ষেত্রে সভাপতির একটি দ্বিতীয় বা নির্ণায়ক ভোট প্রদানের ক্ষমতা থাকিবে৷
 
 
 
 
(৬) কর্পোরেশনের সকল সভায় মেয়র, অথবা তাঁহার অনুপস্থিতিতে 5[ধারা ১৯ এর বিধান অনুযায়ী ক্ষমতাপ্রাপ্ত কমিশনার] অথবা উভয়ের অনুপস্থিতিতে, উপস্থিত কমিশনারগণ কর্তৃক নির্বাচিত কোন কমিশনার সভাপতিত্ব করিবেন৷
 
 
 
 
6[(৭) সরকার কর্তৃক নির্ধারিত কর্মকর্তাগণ কর্পোরেশনের আমন্ত্রণে উহার সভায় যোগদান করিবেন এবং সভার আলোচনায় সক্রিয় অংশগ্রহণ করতঃ বক্তব্য প্রদান করিতে পারিবেন, তবে তাঁহাদের ভোটাধিকার থাকিবে না৷]
 
 
স্থায়ী কমিটি গঠন
৩২৷ (১) কর্পোরেশন প্রত্যেক বত্সর উহার প্রথম সভায়, অথবা যথাশীঘ্র সম্ভব, তত্পরবর্তী কোন সভায় নিম্নবর্ণিত বিষয়াদির প্রত্যেকটি সম্পর্কে একটি করিয়া স্থায়ী কমিটি গঠন করিবে-
 
 
 
 
(ক) অর্থ ও সংস্থাপন;
 
 
 
 
(খ) শিক্ষা;
 
 
 
 
(গ) স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্যরক্ষণ ব্যবস্থা;
 
 
 
 
(ঘ) নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন;
 
 
 
 
(ঙ) হিসাব নিরীক্ষণ ও রক্ষণ;
 
 
 
 
(চ) পূর্ত ও ইমারত নির্মাণ;
 
 
 
 
(ছ) পানি ও বিদ্যুত্;
 
 
 
 
(জ) সমাজকল্যাণ ও কমিউনিটি সেন্টার৷
 
 
 
 
(২) সরকারের পূর্ব অনুমোদনক্রমে, কর্পোরেশন প্রয়োজনবোধে অন্য কোন বিষয়ের জন্যও স্থায়ী কমিটি গঠন করিতে পারিবে৷
 
 
 
 
(৩) প্রত্যেক স্থায়ী কমিটি অনূর্ধ ছয়জন সদস্যের সমন্বয়ে গঠিত হইবে, এবং তাঁহারা কমিশনারগণ কর্তৃক তাঁহাদের নিজেদের মধ্য হইতে নির্বাচিত হইবেন, তবে কোন কমিশনার একই সময়ে দুইটির অধিক স্থায়ী কমিটির সদস্য হইবেন না৷
 
 
 
 
(৪) মেয়র 7[* * *] পদাধিকার বলে সকল স্থায়ী কমিটির সদস্য হইবেন৷
 
 
 
 
(৫) প্রত্যেক স্থায়ী কমিটি উহার সদস্যদের মধ্য হইতে উহার একজন চেয়ারম্যান এবং একজন ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত করিবে৷
 
 
 
 
(৬) মেয়রের উদ্দেশ্যে স্বাক্ষরযুক্ত পত্রযোগে চেয়ারম্যান বা ভাইস-চেয়ারম্যান স্বীয় পদ ত্যাগ করিতে পারিবেন, এবং মেয়র কর্তৃক পদত্যাগ পত্র প্রাপ্তির তারিখ হইতে পদত্যাগ কার্যকরণ হইবে৷
 
 
 
 
(৭) কোন স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান বা ভাইস-চেয়ারম্যান অথবা অন্য কোন সদস্যের পদ আকস্মিকভাবে শূন্য হইলে, তাহা নির্বাচনের মাধ্যমে পূরণ করা হইবে এবং নব নির্বাচিত ব্যক্তি তাঁহার পূর্বসূরীর অবশিষ্ট মেয়াদের জন্য তাঁহার পদে অধিষ্ঠিত থাকিবেন৷
 
 
 
 
(৮) কোন স্থায়ী কমিটি উহার উত্তরাধিকারী স্থায়ী কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করিতে থাকিবে৷
স্থায়ী কমিটিসমূহের কার্যাবলী
৩৩৷ (১) কর্পোরেশন প্রবিধান দ্বারা প্রত্যেক স্থায়ী কমিটির কার্যাবলী নির্দ্ধারণ করিবে৷
 
 
 
 
(২) স্থায়ী কমিটির সকল কার্যধারা কর্পোরেশনের অনুমোদন সাপেক্ষে হইবে৷
অন্যান্য কমিটি গঠন
৩৪৷ কর্পোরেশন প্রয়োজনবোধে অন্য কোন উদ্দেশ্যে কমিশনারগণের মধ্য হইতে বাছাইকৃত ব্যক্তিগণের সমন্বয়ে অন্যান্য কমিটি গঠন করিতে পারিবে৷
কর্পোরেশনের কাজে যে কোন ব্যক্তির সম্পৃক্তকরণ
৩৫৷ (১) কর্পোরেশনের বা উহার কোন স্থায়ী কমিটি কিংবা অন্য কোন কমিটি উহার যে কোন দায়িত্ব পালনের জন্য কোন ব্যক্তির সাহায্য বা পরামর্শের প্রয়োজন বোধ করিলে উক্ত ব্যক্তিকে উহার কাজের সহিত সম্পৃক্ত করিতে পারিবে৷
 
 
 
 
(২) উপ-ধারা (১)-এর অধীনে কর্পোরেশন বা কোন কমিটির সহিত সম্পৃক্ত ব্যক্তি উহার সভায় আলোচনায় অংশ গ্রহণ করিতে পারিবেন, তবে তাঁহার কোন ভোট দানের অধিকার থাকিবে না৷
কর্পোরেশনের সভায় জনসাধারণের প্রবেশাধিকার
৩৬৷ (১) সংখ্যাগরিষ্ঠ কমিশনারগণের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কর্পোরেশনের কোন সভা একান্ত অনুষ্ঠিত না হইলে, উহার প্রত্যেক সভা জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকিবে৷
 
 
 
 
(২) কর্পোরেশন প্রবিধান দ্বারা উহার সভায় জনসাধারণের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করিতে পারিবে এবং সভায় প্রবেশকৃত কোন কোন ব্যক্তি উহার কার্যধারা ব্যাহত করিলে, প্রয়োজনবোধে, বলপূর্বক অপসারণের জন্যও বিধান করিতে পারিবে৷
কমিশনারগণের ভোটদানের উপর বিধি-নিষেধ
৩৭৷ কর্পোরেশন বা উহার কোন কমিটি সভায় কোন কমিশনারের আচরণ সম্পর্কিত কোন বিষয়ের আলোচনায় অথবা তাঁহার আর্থিক স্বার্থ আছে এইরূপ কোন বিষয়ে অথবা তাঁহার ব্যবস্থাধীন বা নিয়ন্ত্রণাধীন আছে এইরূপ কোন সম্পত্তি বিষয়ক আলোচনায় তিনি অংশ গ্রহণ বা ভোট দান করিবেন না৷
সভার কার্য পদ্ধতি ও কার্য পরিচালনার জন্য প্রবিধান
৩৮৷ এই আইন সাপেক্ষে, কর্পোরেশন উহার সভা এবং উহার স্থায়ী কমিটি কিংবা অন্যান্য কমিটির সভার কার্য পদ্ধতি ও কার্য পরিচালনার জন্য প্রবিধান প্রণয়ন করিতে পারিবে৷
সভায় কার্য বিবরণী লিপিবদ্ধকরণ
৩৯৷ (১) কর্পোরেশন এবং উহার প্রত্যেক স্থায়ী কমিটি বা অন্য কোন কমিটির সভায় কার্যবিবরণীতে অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে, উপস্থিত কমিশনার বা সদস্যগণের নাম উল্লেখ করিতে হইবে এবং উক্ত কার্য বিবরণী তদুদ্দেশ্যে রত্মিগত একটি বহিতে লিপিবদ্ধ করিতে হইবে, এবং সভার সভাপতি কর্তৃক তাহা স্বাক্ষরিত হইতে হইবে এবং কর্পোরেশন বা সংশ্লিষ্ট কমিটির পরবর্তী সভায় উপস্থাপিত হইতে হইবে৷
 
 
 
 
(২) উক্ত-ধারা (১) এ উল্লেখিত কার্যবিবরণী কর্পোরেশন অফিসে পরিদর্শনের জন্য উন্মুক্ত রাখিতে হইবে, তবে কমিশনার ব্যতীত অন্য যে কোন ব্যক্তি উহা পরিদর্শন করিতে চাহিলে তাহাকে তজ্জন্য এক টাকা ফিস প্রদান করিতে হইবে৷
 
 
 
 
(৩) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা প্রত্যেক সভার কার্যবিবরণীর একটি প্রতিলিপি উক্ত কার্য বিবরণী স্বাক্ষরিত হইবার তারিখ হইতে দশ দিনের মধ্যে সরকারের নিকট প্রেরণ করিবেন৷
কার্যাবলী ও কার্যধারা বৈধকরণ
৪০৷ (১) এই আইনের অধীনে কৃত কোন কার্য বা গৃহীত কোন কার্যধারা সম্পর্কে কেবল মাত্র-
 
 
 
 
(ক) কর্পোরেশন বা উহার কোন কমিটিতে কোন পদ শূন্যতার কারণে কিংবা উহার গঠনে কোন ত্রুটি থাকার কারণে;
 
 
 
 
(খ) কোন কমিশনার ধারা ৩৭-এর বিধান লংঘন করিয়া কর্পোরেশন বা উহার কোন কমিটির কোন কার্যধারায় ভোট দান বা অংশ গ্রহণ করার কারণে; অথবা
 
 
 
 
(গ) কোন মামুলি ত্রুটি বা অনিয়মের কারণে কোন প্রশ্ন উত্থাপন করা চলিবে না৷
 
 
 
 
(২) কর্পোরেশন অথবা উহার কোন কমিটির সভার কার্যবিবরণী যথাযথভাবে লিপিবদ্ধ ও স্বাক্ষরিত হইলে উহার সভা যথাযথভাবে আহবান করা হইয়াছে এবং পরিচালিত হইয়াছে বলিয়া গণ্য হইবে৷
চুক্তি
৪১৷ (১) কর্পোরেশন কর্তৃক বা উহার পক্ষে সম্পাদিত সকল চুক্তি-
 
 
 
 
(ক) লিখিত হইতে হইবে এবং কর্পোরেশনের নামে সম্পাদিত হইয়াছে বলিয়া প্রকাশিত হইতে হইবে; এবং
 
 
 
 
(খ) প্রবিধান অনুসারে সম্পাদিত হইতে হইবে৷
 
 
 
 
(২) কোন চুক্তি সম্পাদনের অব্যবহিত পরে অনুষ্ঠিত কর্পোরেশনের সভায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা চুক্তিটি সম্পর্কে উহাকে অবহিত করিবেন৷
 
 
 
 
(৩) কর্পোরেশন প্র স্তাবের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের চুক্তি সম্পাদনের জন্য পদ্ধতি নির্দ্ধারণ করিতে পারিবে এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা চুক্তি সম্পাদনের ব্যাপারে উক্ত প্রস্তাব অনুযায়ী কাজ করিবেন৷
 
 
 
 
(৪) এই ধারার খেলাপ সম্পাদিত কোন দায়িত্ব কর্পোরেশনের উপর বর্তাইবে না৷
পূর্ত কাজ
৪২৷ সরকার বিধি দ্বারা-
 
 
 
 
(ক) কর্পোরেশন কর্তৃক সম্পাদিতব্য সকল পূর্ত কাজের পরিকল্পনা এবং আনুমানিক ব্যয়ের হিসাব প্রণয়ন করার বিধান করিবে;
 
 
 
 
(খ) উক্ত পরিকল্পনা ও ব্যয় কোন্‌ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক এবং কি শর্তে প্রযুক্তিগতভাবে এবং প্রশাসনিকভাবে অনুমোদিত হইবে উহার বিধান করিবে;
 
 
 
 
(গ) উক্ত পরিকল্পনা ও ব্যয়ের হিসাব কাহার দ্বারা প্রণয়ন করা হইবে এবং উক্ত পূর্ত কাজ কাহার দ্বারা সম্পাদন করা হইবে উহার বিধান করিবে৷
নথিপত্র, প্রতিবেদন, ইত্যাদি
৪৩৷ কর্পোরেশন-
 
 
 
 
(ক) উহার কার্যাবলীর নথি বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করিবে;
 
 
 
 
(খ) বিধিতে উল্লিখিত বিষয়ের উপর সাময়িক প্রতিবেদন এবং বিবরণী প্রণয়ন ও প্রকাশ করিবে;
 
 
 
 
(গ) উহার কার্যাবলী সম্পর্কে তথ্য প্রকাশের জন্য প্রয়োজনীয় বা সরকার কর্তৃক সময় সময় নির্দেশিত অন্যান্য ব্যবস্থাও গ্রহণ করিতে পারিবে৷
 
 
 
 
 
 

  • 1
    “ডেপুটি মেয়র বা” শব্দগুলি রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সনের ৯ নং আইন) এর ২৩ ধারাবলে বিলুপ্ত
  • 2
    ধারা ২৯ক রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সনের ৯ নং আইন) এর ২৪ ধারাবলে সন্নিবেশিত
  • 3
    “ডেপুটি মেয়র,” শব্দগুলি ও কমা রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সনের ৯ নং আইন) এর ২৫ ধারাবলে বিলুপ্ত
  • 4
    “ধারা ১৯ এর বিধান অনুযায়ী ক্ষমতাপ্রাপ্ত কমিশনার” শব্দগুলি এবং সংখ্যাটি “ডেপুটি মেয়র” শব্দগুলির পরিবর্তে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সনের ৯ নং আইন) এর ২৬ ধারাবলে প্রতিস্থাপিত
  • 5
    “ধারা ১৯ এর বিধান অনুযায়ী ক্ষমতাপ্রাপ্ত কমিশনার” শব্দগুলি এবং সংখ্যাটি “ডেপুটি মেয়র,” শব্দগুলি ও কমার পরিবর্তে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সনের ৯ নং আইন) এর ২৬ ধারাবলে প্রতিস্থাপিত
  • 6
    উপ-ধারা (৭) রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সনের ৯ নং আইন) এর ২৬ ধারাবলে সংযোজিত
  • 7
    “এবং ডেপুটি মেয়র” শব্দগুলি রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (সংশোধন) আইন, ১৯৯৩ (১৯৯৩ সনের ৯ নং আইন) এর ২৭ ধারাবলে বিলুপ্ত
Copyright © 2019, Legislative and Parliamentary Affairs Division
Ministry of Law, Justice and Parliamentary Affairs